Vote campign 05

আরএসএসের লোকে ভরে গিয়েছে নির্বাচন কমিশন, তোপ মমতার

Share Link:

আরএসএসের লোকে ভরে গিয়েছে নির্বাচন কমিশন, তোপ মমতার

নিজস্ব প্রতিনিধি: দেশের তথাকথিত নির্বাচন কমিশন আরএসএসের লোকে ভরে গিয়েছে বলে বুধবার বিস্ফোরক অভিযোগ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনই রাজ্যে শেষ দফার ভোটে বিজেপিকে সুবিধা পাইয়ে দিতে তৃণমূল নেত্রীর ভোটপ্রচার আটকাতে প্রচার সময়সীমা কমিয়ে দেওয়ার তুঘলকি ফরমান জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। কালীঘাটের বাড়িতে রাতে জরুরি সাংবাদিক বৈঠক ডেকে কমিশনের সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। তাঁর কথায়, ‘বিজেপির কথায় চলছে নির্বাচন কমিশন। আরএসএসের লোকে ভরে গিয়েছে। বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার জন্য মোদি ও শাহকে পুরস্কার দেওয়া হল। সকালে অমিত শাহ সাংবাদিক বৈঠক ডেকে নির্বাচন কমিশনকে হুমকি দিয়েছিল, কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই অসাংবিধানিক, অগণতান্ত্রিক ও রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’ 

বিজেপির শাখা সংগঠন হিসেবে কাজ করা নির্বাচন কমিশনের শাস্তির তোয়াক্কা যে তিনি করেন না, তাও দীপ্ত কণ্ঠে জানিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উল্টে কমিশনকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে তিনি বলেছেন, ‘আমায় কী করবে? শোকজ করবে? জেলে পাঠাবে। তাও আমি ভয় পাই না। যা সত্যি তাই বলব।’ রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, ‘বিজেপি নেতাদের অঙুলিহেলনে চলা নির্বাচন কমিশনের মুখোশ খুলে দেওয়ার জন্যই তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার পথ বেছে নিয়েছেন কমিশনের বিজেপি ঘনিষ্ঠ ত্রয়ী সুনীল অরোরা, সুশীল চন্দ্র ও সুদীপ জৈন।’

সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্য ও সিআইডির এডিজি রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে যেভাবে প্রতিহিংসার রাস্তায় হেঁটেছেন বিজেপি বান্ধব উপনির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন, তা নিয়েও সরব হয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তাঁর কথায়, ‘রাজীব কুমারের উপরে এত রাগ কেন? হাওয়ালার টাকা ধরেছিল বলে? বিজেপিতে যাওয়া একটা গদ্দার (পড়ুন মুকুল রায়), চম্বলের ডাকাত (পড়ুন কৈলাস বিজয়বর্গীয়), হিমন্ত বিশ্বশর্মারা ভয় পাচ্ছেন। তাই রাজীবের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসা মেটানোর জন্য নির্বাচন কমিশনকে ব্যবহার করা হচ্ছে।’ মমতার আরও অভিযোগ, ‘বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার ঘটনায় বাংলার মানুষের মনে যে আবেগ তৈরি হয়েছে, তা থেকে নজর ঘোরাতে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’ সেইসঙ্গে তিনি হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, ‘বাংলা জম্মু-কাশ্মীর নয়, ত্রিপুরা নয়, বাংলা কিন্তু বাংলা-ই। বাংলার মানুষ এমন অপমান সহ্য করবে না।’

Vote campign 05

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Vote2019 camp01

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Vote campign 07

ভোটের জবাব

বীরভূমের লাভপুরে স্ট্রংরুমের পাহারায় কেন্দ্রীয় বাহিনী

বীরভূমের লাভপুরে স্ট্রংরুমের পাহারায় কেন্দ্রীয় বাহিনী

মাদুরাইয়ে একটি স্ট্রংরুমে কড়া প্রহরা

মাদুরাইয়ে একটি স্ট্রংরুমে কড়া প্রহরা

Voting Poll (Ratio)

Vote2019 camp01