Vote campign 06

মুখ ঢেকে যায় লজ্জায়

Share Link:

মুখ ঢেকে যায় লজ্জায়

নিজস্ব প্রতিনিধি: মঙ্গলের সন্ধেয় কল্লোলিনী কলকাতার আকাশ ছিল মেঘমুক্ত। কিন্তু সেই মেঘমুক্ত আকাশের কোথাও কী লুকিয়েছিল লজ্জার অমানিশা? হয়তো ছিল। হয়তো আমাদের সাদাচোখে তা ধরা পড়েনি। যাঁর বর্ণপরিচয়ের সূত্রে বাঙালির প্রথম অক্ষরের সঙ্গে পরিচয়, নারী ও অর্ধেক আকাশের অংশীদার-এমন নিগূঢ় সত্য যিনি আমাদের শিখিয়েছিলেন, সেই ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মূর্তিই ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দিল ক্লীব, নপুংশক কিছু সন্ত্রাসী। যারা নিজেদের কট্টর হিন্দুত্বের ধ্বজাধারী বলে পরিচয় দিতে গর্ববোধ করে, যারা স্বঘোষিত হিন্দুত্বের ত্রাণকর্তা হিসেবে নিজেদের জাহির করে, তারা কিভাবে পৈশাচিক উল্লাসতায় মেতে উঠে গুঁড়িয়ে দিল মূর্তি, সেই দৃশ্য যতবার চোখের সামনে ভাসছে ততই হৃ‍ৎস্পন্দনের গতি কেমন যেন বেড়ে যাচ্ছে।

দেশের নবজাগরণের পথিকৃতের নামাঙ্কিত কলেজ চত্বরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ভাঙা মূর্তি যেন লজ্জার প্রতীক হয়ে নির্বাক শব্দেই ব্যঙ্গ করছে আমাদের। যেন বলছে, মূর্তি গুঁড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছো, কিন্তু বর্ণপরিচয় কী মুছে দিতে পারবে?  শত টুকরো করে দিয়েছো মূর্তি, কিন্তু মেয়েদের শিক্ষার অধিকার কী কেড়ে নিতে পারবে? শুধু একটা প্রতীকী মূর্তি ভেঙ্গে কী নারীকে অর্ধেক আকাশের অধিকার থেকে বঞ্চিত করতে পারবে?

নীরব প্রশ্নের কোনও জবাব দেওয়ার মতো শব্দ নেই, ভাষা নেই। বিশ্বের মানুষের কাছে যিনি আইকন, যাঁর ঋজু মানসিকতার কাছে বারবার হার মেনেছে ইংরেজদের মতো নৃশংস স্বৈরশাসকরা, অত্যাচারীরা, আজ তাঁর মূর্তি ভেঙ্গে যারা পৈশাচিক উল্লাসে মেতে উঠল তারা আসলে বাঙালির গর্বের জায়গায় আঘাত করল, সারা বিশ্বের কাছে বাঙালির মাথা একলহমায় হেঁট করে দিল। এ লজ্জা রাখার কোনও জায়গা নেই, এ কলঙ্ক মুছতে হয়তো যুগের পর যুগ কেটে যাবে।

Vote campign 06

Leave A Comment

Don’t worry ! Your email & Phone No. will not be published. Required fields are marked (*).

এই মুহূর্তে Live

Vote campign 07

Stay Connected

Get Newsletter

Featured News

Advertisement

Board Exam AD2

ভোটের জবাব

বীরভূমের লাভপুরে স্ট্রংরুমের পাহারায় কেন্দ্রীয় বাহিনী

বীরভূমের লাভপুরে স্ট্রংরুমের পাহারায় কেন্দ্রীয় বাহিনী

মাদুরাইয়ে একটি স্ট্রংরুমে কড়া প্রহরা

মাদুরাইয়ে একটি স্ট্রংরুমে কড়া প্রহরা

Voting Poll (Ratio)

Vote campign 08